• , |
  • ঢাকা, বাংলাদেশ ।
সর্বশেষ নিউজ
* সমমনাদের সঙ্গে বিএনপির বৈঠক : রোডমার্চ, লংমার্চ ও সমাবেশের আসছে * আদালতের রায়ের পর শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের যৌক্তিকতা নেই: কাদের * রোববার কোটা বিরোধীরা সড়কে নামলেই কঠোর ব্যবস্থা নেবে সরকার * পার্লামেন্টে আস্থা ভোটে হারলেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী * রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু করতে ইতিবাচক মিয়ানমার : পররাষ্ট্রমন্ত্রী * বাংলাদেশ সব দিক থেকেই ডুবে গেছে : আমীর খসরু * আবারো মিয়ানমারের শতাধিক সেনা ও বিজিপি সদস্য পালিয়ে এসেছে টেকনাফে * শনিবার সংবাদ সম্মেলন করে পরবর্তি কর্মসূচী ঘোষণা শিক্ষার্থীদের * অ্যান্ডারসনের বিদায়ী টেস্টে ইংল্যান্ডের দাপুটে জয় * রাবি শিক্ষার্থীদের রেললাইন অবরোধ

মুম্বাইয়ে ছেলের বিএমডব্লিউকাণ্ডে দল থেকে বহিষ্কৃত শিবসেনা নেতা

news-details

ছবি-সংগৃহীত


মুম্বাইয়ের বিএমডব্লিউকাণ্ডের পর বহিষ্কার করা হলো অভিযুক্তের বাবা শিবসেনা নেতা রাজেশ শাহকে। মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী একনাথ শিন্ডে রাজেশকে দল থেকে বহিষ্কার করেছেন।

ঘটনার চার দিন পর এই ‘শাস্তি’ পেলেন রাজেশ। তাকে মুম্বাই পুলিশ গ্রেফতারও করেছিল। যদিও আপাতত জামিনে মুক্ত রয়েছেন। তবে রাজেশের ছেলে তথা বিএমডব্লিউকাণ্ডের মূল অভিযুক্ত মিহির শাহকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

জানা গেছে, মহারাষ্ট্রের পালঘরের নেতা ছিলেন রাজেশ। দীর্ঘ দিন ধরে তিনি যুক্ত শিবসেনার (একনাথ শিন্ডে গোষ্ঠী) সঙ্গে। দলের সহকারী নেতার পদে ছিলেন তিনি। বুধবার সেই পদ থেকেও তাকে অপসারিত করা হয়েছে। রাজেশকে বহিষ্কার ও পদ থেকে অপসারণের নির্দেশ দিয়েছেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী শিন্ডে।

গত ৭ জুলাই মুম্বাইয়ের ওরলিতে রাজেশের ছেলে মিহির বিএমডব্লিউ নিয়ে ধাক্কা মারেন একটি স্কুটিতে। সেই দুর্ঘটনায় ৪৫ বছর বসয়ী এক নারীর মৃত্যু হয়। তার পর থেকে অভিযুক্ত পলাতক ছিলেন।

দুর্ঘটনার তিনদিনের মাথায় তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় তদন্তে অসহযোগিতার অভিযোগে আগেই গ্রেফতার করা হয়েছিল রাজেশ ও গাড়ির চালককে। ১৫ হাজার রুপির ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন পান রাজেশ। ঘাতক গাড়িটিও তার নামেই নথিভুক্ত ছিল। দলের নেতার ছেলের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগে অস্বস্তিতে পড়ে মহারাষ্ট্রের শিন্ডেগোষ্ঠী। সেই কারণেই ঘটনার চার দিন পর তাকে শাস্তি দেওয়া হলো বলে মনে করা হচ্ছে।

রাজেশের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, ঘটনার কথা জানার পর ছেলেকে বাঁচাতে নানা বুদ্ধি দিয়েছিলেন তিনি। দীর্ঘক্ষণ ছেলের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন। অভিযোগ রয়েছে ঘটনার পরেই চালকের সঙ্গে আসন বদলে নিতে ছেলেকে উপদেশ দিয়েছিলেন রাজেশ। চালকের ঘাড়েই সব দোষ চাপাতে চেয়েছিলেন। এখন তাকে ও তার পরিবারের সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।


আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মন্তব্য করুন