• , |
  • ঢাকা, বাংলাদেশ ।
সর্বশেষ নিউজ
* কারিগরি শিক্ষায় আগ্রহ কমছে শিক্ষার্থীদের * ঘূর্ণিঝড় রেমাল: সমুদ্রবন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত * ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় রেমাল, দুপুরে আঘাত হানার শঙ্কা * ভারতে শিশু হাসপাতালে আগুনে পুড়ে ৭ নবজাতকের মৃত্যু * মোস্তাফিজের রেকর্ডে ১০ উইকেটে জিতল বাংলাদেশ * ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় রেমাল, সমুদ্রবন্দরে বিশেষ সতর্কতা * রুয়েট শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার * হোয়াইটওয়াশ লজ্জা বাঁচাতে টস জিতে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ * সার্ভারে ত্রুটি, বন্ধ মেট্রোরেল চলাচল * জাহেলিয়াত থেকে তরুণ প্রজন্মকে বাঁচাতে ইসলামী শিক্ষার বিকল্প নেই : ড. চৌধুরী মাহমুদ হাসান

ভিক্ষুককে টাকা দিতে নিষেধ করে ইসলাম!

news-details

ছবি : সংগৃহীত


ইসলাম মানুষকে ভালো কাজ করতে উদ্বুদ্ধ করে। আবার ভিক্ষুককে  ভিক্ষা দেওয়ার ক্ষেত্রে প্রত্যেককে অবশ্যই নিষধ করে। এছাড়া প্রত্যেককে ভিক্ষা দেওয়ার চেয়ে অবশ্যই উত্তম চিন্তা করতে উৎসাহিত করে। আর তা হলো একজনকে স্বাবলম্বী করে দেওয়া। 

শহরে ভিক্ষুকরা সচরাচর নিজের অসহাত্ব প্রকাশ করে মানুষের কাছে থেকে অর্থ নিয়ে থাকে। এই চিত্র খুবই স্বাভাবিক। কিন্তু ইসলাম এটিকে ভিন্ন দৃষ্টিতে দেখে। আর সেটি হলো অন্যকে সাহায্য করা অবশ্যই ভালো কাজ তবে সবসময় ভিক্ষুককে টাকা বা অর্থ দেওয়াকে নিরুৎসাহিত করে।

কারণ ইসলাম সকলের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করতে বলে। এর মধ্যে যারা অভাবী বা অভাবগ্রস্ত তাদের সাহায্য দরকার তাদের প্রতিও সম্মান প্রদর্শন করতে কার্পূণ্য করতে নিষেধ করে। অন্যদিকে এটিও মানুষের জন্য  গুরুত্বপূর্ণ যে অন্যের উপর নির্ভরশীলতা ভালো নয় বরং নিজের যত্ন নিজে নেওয়া  উত্তম। ইসলাম এও শিক্ষা দেয় যে ভিক্ষাবৃত্তি উচিৎ নয়, যদি তা এড়িয়ে যাওয়া যায়। পবিত্র কোরআন ও  হাদীসের আলোকে এটি সাময়িক সময়ের জন্য অনুমোদন দেয়, তবে দীর্ঘমেয়াদে হতে পারে না।

ইসলামের একটি বড় নীতি হলো আমাদের সকল কর্মের জন্য জবাবদিহি করতে হবে। প্রত্যেকেই তার নিজ কর্মের জন্য নিজেই দায়ী। আমাদের সকলের উচিৎ আত্মনির্ভরশীল হওয়া। যখন কোনো ব্যক্তি অধিকহারে অন্যের সহযোগিতাপ্রাপ্ত হন বা ভিক্ষাবৃত্তি করতে থাকেন, তখন তিনি আর আত্মনির্ভারশীল হওয়ার চেষ্টা করা বা অন্যদেরকে সহযোগিতা করার চেষ্টাও বন্ধ করে দেন। এটি তাদেরকে এবং সমাজকে বেশি পরিমাণে অন্যের উপর নির্ভরশীলতার দিকে ঠেলে দেয়।

অন্যকে সাহায্য করতে ইসলাম আমাদেরকে শিক্ষা দেয়। মানুষকে শক্তিশালী করে তুলে নিজের পায়ে দাঁড়িয়ে আত্মনির্ভরশীর করতে উদ্বুদ্ধ করে। ভিক্ষুককে ভিক্ষা দেওয়া হলে এটি কেমল তার জন্য সাময়িক ভালো হতে পারে, তবে তিনি কেন গরীব বা খারাপ অবস্থায় আছেন- সেই সমস্যা চিহ্নিত করা সম্ভব হয় না। এক্ষেত্রে সবার জন্য যা কল্যাণকর এবং যুগোপযোগী সেই পন্থায় কিভাবে তাদের সাহায্য করা যায় ইসলাম সেটিকেই উৎসাহিত করে।

যাকাত হলো সম্পদের ন্যায্য বণ্টন। এটি সমাজের সকলকে আরও ভালো পন্থায় সহযোগিতা করতে সাহায্য করে। দাতব্য সংস্থা ও সহযোগী প্রকল্পের মাধ্যমে যাকাত আদায় ও বণ্টনের মাধ্যমে সমাজ থেকে সুন্দর পন্থায় অভাব মুছে ফেলা সম্ভব। 

আজ ভিক্ষাবৃত্তি অভাবের অংশ করা হয়েছে কিন্তু এটিকে সঠিকভাবে পর্যালোচনা করা হয় না। তাৎক্ষণিক সহযোগিতা ভালো, তবে বড় সমস্যার সমাধান করতে ব্যর্থ।  সুতরাং আমাদের অবশ্যই ভাবতে হবে আমরা কিভাবে অন্যদের সাহায্য করব। 

ভিক্ষুকদেরকে দেওয়ার ইসলামী নিয়ম হলো চিন্তাশীল, দায়িত্বশীল পন্থায় দিয়ে তাকে স্বাবলম্বী করা। তাদেরকে সহযোগিতা করা  মহৎ কাজ, কিন্তু উত্তম পন্থায় আমাদের সেটি করা উচিৎ। 


এম এ জিসান

মন্তব্য করুন